অশ্লীল মন্তব্যে ফেসে গেলেন ট্রাম্প (ভিডিওসহ)

0
23340

trumpনারীদের নিয়ে নোংরা মন্তব্যের টেপ ফাঁস হওয়ার পর তীব্র সমালোচনার মুখে পড়া যুক্তরাষ্ট্রের রিপাবলিকান দলের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি নির্বাচনী লড়াই থেকে সরে দাঁড়াবেন না।

তার সমর্থকদের তিনি মনোবল হারাতে দেবেননা এবং কাল দ্বিতীয় প্রেসিডেন্সিয়াল বিতর্কেও অংশ নেবেন বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে রিপাবলিকান পার্টির কয়েকজন শীর্ষ স্থানীয় নেতা , তাদের দল থেকে ডনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার করে নিচ্ছেন। ২০০৫ সালের ভিডিওতে তাঁর লম্পট ও কামুক মন্তব্যের কারণে কোন কোন দলীয় নেতা বাধ্য হয়েছেন এ কথা বলতে যে তাঁরা ট্রাম্পকে ভোট দেবেন না। কেউ কেউ এ কথা ও বলেছেন যে তাঁরা ডেমক্র্যাটিক প্রতিদ্বন্দ্বি হিলারি ক্লিন্টনকেও ভোট দেবেন না। এর ফলে তাঁরা এমন একটি অবস্থানে রয়েছেন যে তাঁরা প্রেসিডেন্ট পদের জন্য কাউকেই ভোট দিচ্ছেন না আর তৃতীয় দলের প্রার্থিদের ভোট দিলেও , হোয়াইট হা্‌উজে যোগ দেওয়ার এই প্রতিযোগিতায় তাঁদের জয়ী হবার কোন সম্ভাবনাই নেই।

সেই আলোচিত  ২০০৫ সালে ধারণ করা তিন মিনিটের এই ভিডিওতে ট্রাম্পকে বলতে দেখা যায়, সুন্দরী মেয়ে দেখলেই তাকে চুমু খেতে তিনি ব্যাকুল হয়ে পড়েন। ‘আমি সুন্দরী মেয়ে দেখলে তার প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়ি। একদম চুম্বকের মতো, বিন্দুমাত্র অপেক্ষা করি না। তুমি যদি “স্টার” হও, যা খুশি করতে পারো। মেয়েদের গায়ে হাত দিয়ে তাদের কাছে টানতে পারো।’

একজন বিবাহিত নারী প্রসঙ্গে ট্রাম্প বলেন, তাঁর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের বিস্তর চেষ্টা করেও তিনি সফল হননি।

এনবিসি টিভির জন্য একটি অনুষ্ঠান রেকর্ড করার জন্য ট্রাম্প বাসে করে আসছিলেন। তাঁকে স্বাগত জানাতে অপেক্ষা করছিল এক তরুণী। মেয়েটিকে দেখেই ট্রাম্প বলে ওঠেন, ‘দাঁড়াও, গোটা কয় টিকট্যাক (অতি ক্ষুদ্র লজেন্স) খেয়ে নিই। আবার যদি চুমু খেতে হয়।’

এদিকে সেনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ রিপাবলিকান নেতা মিচ ম্যাককনেল বলেছেন, “এই সব মন্তব্য একেবারে বাজে এবং যে কোন পরিস্থিতিতে অগ্রহণযোগ্য । আমি মনে করি সব জায়গাতেই এখন ট্রাম্পের উচিৎ হবে মহিলা ও মেয়েদের কাছে ক্ষমা চাওয়া”। তিনি তাঁকে পুর্ণ এবং নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে বলেছেন।

ইউটাহর সেনেটর মাইক লি তাঁকে এই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে বলেছেন । তিনি বলেন তাঁর কারণে জরুরী সব বিষয় থেকে মনোযোগ অন্যদিকে চলে যাচ্ছে।

সেনেটর মার্ক কার্ক তাঁর টুইট বার্তায় বলেছেন যে ট্রাম্পের নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানো উচিৎ এবং রিপাবলিকান পার্টির উচিৎ হবে জরুরি ভিত্তিতে কাউকে মনোনয়ন দানের নিয়ম কার্যকর করা। সেনেটর জন ম্যাকেকইন বলেছেন ট্রাম্প নিজের আচরণের বোঝা নিজেই বহন করছেন এবং এর পরিণতি তাঁকে একাই ভোগ করতে হবে।

দলের জাতীয় কমিটির চেয়ারম্যান কোন নারীকে এই ভাবে বর্ণনা করা ঠিক নয় , এ সব কথা ও বলা ঠিক নয়। প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার পল রায়ান বলেন তিনি আশা করছেন ট্রাম্প দেশের জনগণের কাছে এটা প্রমাণ করবেন যে মেয়েদের প্রতি তাঁর

সম্মান বোধ আরও অনেক বেশি। রায়ান আরও বলেন যে তাঁর নিজের রাজ্য উইসকনসিনে আজ ট্রাম্পের যে অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া কথা ছিল সেখানে ট্রাম্প যোগ দিতে পারবেন না।

হিলারী ক্লিন্টন এই মন্তব্যকে ভয়াবহ বলে বর্ণনা করেছেন এবং এক টু্‌ইট বার্তায় বলেছেন , আমরা এই লোকটিকে দেশের প্রেসিডেন্ট হতে দিতে পারিনা। VOA

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here